বিবর্তন ঘটছে মানুষের পায়ের পাতার আকারে - হাতেখড়ি

বিবর্তন ঘটছে মানুষের পায়ের পাতার আকারে

মাকামে মাহমুদ চৌধুরী,চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়:

আমাদের পিঠ,দাঁত এবং চোখের মতোই আধুনিক জীবন বদলে দিচ্ছে পায়ের আকার।গত চার দশকের মধ্যে আমাদের পায়ের আকার দুই সাইজ বড় হয়ে গেছেপাঁচ লক্ষ বছর আগে মানুষের পা এমনভাবে গড়ে উঠেছিল যাতে সে অনেক পথ হাঁটতে পারে,দৌড়াতে পারে,শিকার করতে পারে।

মানুষের পায়ের তলদেশ মজবুত ও নমনীয়, প্রতি পদক্ষেপের সাথে তা আমাদের ওজনের ১৫ শতাংশকে গতি সৃষ্টিকারী শক্তিতে পরিণত করে।কিন্তু প্রায় ৪০ হাজার বছর আগে জুতা আবিষ্কার হয়েছিল।কারণ এসময় থেকেই দেখা যায়, পায়ের পেশীর আকার একটু ছোট হয়ে আসতে শুরু করেছেশুরু থেকেই জুতা পরার অভ্যাস আমাদের পা-কে দুর্বল করে দিচ্ছে।তার ওপর আমাদের হাঁটাচলার পরিমাণও আগের চেয়ে কমে গেছে।

ধনী দেশগুলোতে এখন ৮০ ভাগেরও বেশি কাজ চেয়ারে বসেই করা যায়।বাড়িতে যে সময়টা কাটে,তখনও বসে থাকার পরিমান বেড়ে গেছে।জুতো পড়া এবং পায়ের কাজ কমার ফলে পায়ের তলার পেশী কমজোড় হয়ে গেছে।এতে পায়ের তলদেশ সমান হয়ে যাচ্ছে এবং তা আকারে বড় দেখাচ্ছে।ধনী দেশগুলোর প্রায় ৩০ শতাংশ লোকের এখন ‘ফ্লাট ফুট’ দেখা যায়।এতে মানুষের হাড়ের সংযোগ স্থল ও মেরুদন্ডে নানা সমস্যা দেখা দেয়, কর্মদক্ষতা ও জীবনের মান কমে যায়।ব্যায়াম ও অস্ত্রপচার করে পায়ের পেশির শক্তি বাড়ানো যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *