নুসরাত হত্যার বিচারের দাবিতে প্রতিবাদী মানববন্ধনে খেলাঘর

আরিয়ান হাবিব:

সোনাগাজীর মাদ্রাসাশিক্ষার্থী নুসরাত জাহান রাফি হত্যার বিচারের দাবিতে রাজধানীর গণভবন এলাকা থেকে বঙ্গভবন এলাকা পর্যন্ত মানববন্ধন পালিত হয়েছে। শনিবার (১৩ এপ্রিল) সকাল ১১টা থেকে ১২টা পর্যন্ত এই কর্মসূচি পালিত হয়। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, ছাত্র, সাংস্কৃতিক, নারী অধিকার ও শিশুসংগঠনসহ বিভিন্ন এনজিও’র উদ্যোগে এই কর্মসূচি পালিত হয়।

মানববন্ধনে কেন্দ্রীয় খেলাঘর আসর আসাদগেট অবস্থান নেয়। এসময় খেলাঘর কেন্দ্রীয় কমিটির প্রেসিডিয়াম সদস্য মোখলেসুর রহমান সাগর, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রুনু আলী, সম্পাদক সৌমেন পোদ্দার, সাবেক সম্পাদক আমিনুল রানা, সদস্য নাসরিন মোজাম্মেল এমান, কনক বিশ্বাস, খেলাঘর ঢাকা মহানগর দক্ষিনের সভাপতি কাজি জাবেদ ইকবাল শিহাব, খেলাঘর ঢাকা মহানগর উত্তরের সাধারণ সম্পাদক তাহাজুল ইসলাম ফয়সাল, সম্পাদক হুমায়ুন কবির, সদস্য শহিদুল ইসলাম সহ বিভিন্ন শাখা আসরের কর্মী ও শিশুকিশোররা উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধনটি রাজধানীর আসাদগেট, কলাবাগান, সায়েন্স ল্যাবরেটরি, এলিফেন্ট রোড, বাটা সিগন্যাল, কাঁটাবন, শাহবাগ, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট, হাইকোর্ট, প্রেসক্লাব, পল্টন মোড়, দৈনিক বাংলা মোড়, রাজউক ভবন এলাকায় অনুষ্ঠিত হয়।

উল্লেখ্য, নুসরাত জাহান রাফি সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার আলিম পরীক্ষার্থী ছিল। মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ উদ দৌলা এর আগে তাকে যৌন নিপীড়ন করে বলে অভিযোগ ওঠে। এ অভিযোগে নুসরাতের মা শিরিন আক্তার বাদী হয়ে গত ২৭ মার্চ সোনাগাজী থানায় মামলা দায়ের করেন। এরপর অধ্যক্ষকে আটক করে পুলিশ। মামলা তুলে নিতে বিভিন্নভাবে নুসরাতের পরিবারকে হুমকি দেওয়া হচ্ছিল। গত ৬ এপ্রিল সকাল ৯টার দিকে আলিম পর্যায়ের আরবি প্রথম পত্র পরীক্ষা দিতে সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসা কেন্দ্রে যায় নুসরাত। এরপর কৌশলে তাকে পাশের ভবনের ছাদে ডেকে নেওয়া হয়। তাকে মামলা তুলে নেওয়ার কথা বলে ভয় দেখানো হয়। পরে সেখানে বোরকা পরিহিত ৪/৫ ব্যক্তি নুসরাতের শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে তার শরীরের ৮৫ শতাংশ পুড়ে যায়। পরে তাকে উদ্ধার করে তার স্বজনরা প্রথমে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে ফেনী সদর হাসপাতালে পাঠান। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পর তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে পাঠানো হয়।

সোমবার (৮ এপ্রিল) দগ্ধ মাদ্রাসাছাত্রীকে উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে পাঠানোর নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তবে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসকদের সঙ্গে কথা বলে ঢামেকের ডাক্তাররা জানান, নাজুক শারীরিক অবস্থার কারণে তাকে সিঙ্গাপুরে নেওয়া সম্ভব নয়। বুধবার রাতে অবস্থার আরও অবনতি ঘটলে নুসরাত মারা যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *