পানিতে ডুবে একের পর এক শিশুর মৃত্যু - হাতেখড়ি

পানিতে ডুবে একের পর এক শিশুর মৃত্যু

আরিফুল ইসলাম রিফাত, চট্টগ্রাম:

সম্প্রতি দেশের জেলা উপজেলায় পুকুরের পানি,নালা কিংবা, নদ-নদীতে ডুবে শিশুর মৃত্যু হার বৃদ্ধি পেয়েছে। যার কোনো সঠিক তথ্য নেই।প্রতিদিনের খবরের পাতা উল্টাতেই চোখে আটকা পড়ে এমন বিভিষীকাময় ঘটনা। যা সত্যিই মনে আঁচড় কাটার মতো দুঃষহ স্মৃতি। প্রতিদিনই খালি হচ্ছে মায়ের কোল। হয়তো প্রত্যেকটা ঘটনার খবর গণমাধ্যমে আসছে না কিন্তু প্রতিমূহুর্তেই ঘটছে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু। প্রত্যেকটি মৃত্যুর ঘটনার বিস্তারিত প্রতিবেদন এ আসে পরিবারের অঘোচরেই অমুক শিশু পানিতে ডুবে মৃত্যু হয়েছে। যা পরিবারের একমাত্র অচেতনতার কারণকেই দুষছেন সংশ্লিষ্টরা। এজন্য পরিবারের যেমন সতর্ক হওয়া প্রয়োজন তেমন জনসচেতনতা বাড়ানোর তাগীদ তাদের। দেশে মাদক কিংবা অন্যান্য অসামাজিক কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে যে হারে ব্যানার পোষ্টার দিয়ে বিভিন্ন সংস্থা সচেতনতা সৃষ্টি করছে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যুর হার কমানোর কোনো সচেতনতা আদৌ চোখে পড়েনি। অনেকেই মনে করেন পরিবারকে সচেতন করতে এমন জনসচেতনতামূলক আন্দোলন সময়ের দাবী। এতে করে কিছুটা হলেও কমতে পারে। আবার অনেকেই বলে থাকেন ‘পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু’ এ ধরনের নিউজ ও জাতীয় পত্রিকায় ছাপানোর কি প্রয়োজন হ্যা অবশ্যই প্রয়োজন এমনটি যারা ভাবেন ভ্রান্ত ধারণা এটিও একটি জনসচেতনতা।

চট্টগ্রামেও একের পর বেড়ে চলেছে পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যুর হার। বিশেষ করে লোহাগাড়া উপজেলায় যা ক্রমেই বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত কয়েকদিন আগেও পানিতে ডুবে মিহীনা নামক এক শিশু পানিতে ডুবে মারা যাওয়ার রেশ কাটতে না কাটতেই আজ ২০ অক্টোবর উপজেলার আমিরাবাদ ইউনিয়নের সৈয়দ পাড়া এলাকায় পুকুরে ডু্বে ইশফা(১৮ মাস) নামের এক কন্যা শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে সংবাদ পাওয়া গেছে। সে উপজেলার পদুয়া ইউনিয়নের দরগাহ মুড়া এলাকার আবছার উদ্দিনের কন্যা।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ইশফা গত ১৯ অক্টোবর তার ফুফির বাড়ীতে মা`র সাথে বেড়াতে যায়। শনিবার সকালে সবার অগোচরে খেলতে খেলতে বাড়ি থেকে বের হয়ে পার্শ্বের পুকুরে পড়ে যায়।

নিহতের দাদী আরেফা বেগম বলেন, ইশফা তার মায়ের সাথে আমিরাবাদ সৈয়দ পাড়াস্হ তার মেয়ের বাড়িতে বেড়াতে যান। তাকে দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজির এক পর্যায়ে পুকুরে ভাসমান অবস্থায় দেখতে পেয়ে উপজেলার একটি প্রাইভেট হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক আমার শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন।নিহত শিশু ইশফার অকাল মৃত্যুতে তার পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *