ছবি আঁকায় পারদর্শী ছয় বছরের লিহান - হাতেখড়ি

ছবি আঁকায় পারদর্শী ছয় বছরের লিহান

খালিদ আহম্মেদ রাজাঃ প্রতিটা শিশুই জন্মগতভাবে সৃজনশীল। সেটির বিকাশ নির্ভর করে তার বেড়ে ওঠার পরিবেশের ওপর। এ কারণে শিশুর সৃজনশীলতা বিকাশে সবচেয়ে বড় ভূমিকা রাখতে পারে পরিবার। বিশেষ করে মা-বাবা। তবে বাবা সারাটাদিন ব্যস্ত সময় পার করে থাকে। মায়ের উপর সবচেয়ে বেশি দায়িত্ব পড়ে থাকে শিশুটির। বয়স বাড়ার সাথে সাথে তার লুকায়িত প্রতিভা বিকশিত হয় আপন মহিমায়। সঠিক পরিচর্যা, পর্যাপ্ত আলো বাতাসে যেমন ছোট চারা গাছ মহীরূপে আবির্ভূত হয়, তেমনি শিশুর সার্বিক বিকাশে প্রয়োজন সুখ- সুন্দর, নির্মল পরিবেশ আর নিবিড় যত্ন।

মো: সাওখাত আহম্মেদ লিহান। বয়স ছয় (৬) বছর। সে রংপুর ঊষা আইডিয়াল কিন্ডারগার্ডেন স্কুলের প্লে শ্রেণীতে পড়ে। পুড়াশোনার পাশাপাড়ি ছবি আঁকতে খুব ভালোবাসে। স্কুলে তাকে সবাই আদর করে লিহান আহম্মেদ বলে ডাকে। বাবা মায়ের আদরের সন্তান সে। পড়াশোনায় খুব পারদর্শী, তবে দুষ্টমিতেও কম না।
ছবি আঁকাতে পছন্দ হলেও, মোবাইলে গেম খেলতে খুব ভালোবাসে। আর দিনের শেষে বন্ধুদের নিয়ে খেলতে যায় মাঠে । তার সবচেয়ে বড় স্বপ্ন সে বড় হয়ে একটি চার চাকার গাড়ি কিনবে। তাতে করে সবাই ঘুরে বেড়াবে।
শিশুরা বিদ্যালয়ের প্রাণ। শিশুদের মানবিক, নান্দনিক, মানসিক তথা সার্বিক বিকাশ সাধনে বিদ্যালয় সর্বদা অগ্রণী ভূমিকা পালন করে থাকে। নিষ্পাপ কোমলমতি শিশুদের পরিপূর্ণ বিকাশে সরকারের পাশাপাশি প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতেও নেওয়া হচ্ছে নানা মহতী উদ্যোগ। এছাড়া শিশুদেরকে শৃঙ্খলা ও ভালো কাজে উৎসাহী করার জন্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের প্রতিদিনের নিয়ম মাফিক একটি ভাল কাজ করার চিন্তা চেতনার বিস্তৃতি ঘটানো হচ্ছে। এসব কর্মকান্ড শিশুর সার্বিক বিকাশ সাধনে সহায়তা করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *